৬ আশ্বিন, ১৪২৪|২৯ জিলহজ্জ, ১৪৩৮|২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭|বৃহস্পতিবার, সন্ধ্যা ৬:১০

সৌদি আরবে শিয়া নেতাসহ ৪৭ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম:

সৌদি আরবে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে একদিনে এক শিয়া নেতাসহ ৪৭ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। সৌদি সরকার এক বিবৃতিতে জানায়, সন্ত্রাসবাদের অভিযোগে যে ৪৭ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে নেতৃস্থানীয় শিয়া নেতা শেখ নিমর আল নিমর তাদের অন্যতম।দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শনিবার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে প্রচারিত এক বিবৃতিতে এই তথ্য নিশ্চিত করেছে।

ওই বিবৃতিতে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা ৪৭ জনের নাম ঘোষণা করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদের অভিযোগ রয়েছে। অভিযুক্তরা বিভিন্ন আবাসিক এলাকা ও সরকারি ভবনে হামলা ও হামলার পরিকল্পনার সাথে জড়িত ছিল বলে দাবি করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

সৌদি আরবে শিয়া সম্প্রদায়ের প্রায় ২০ লাখ মানুষ বাস করে। ২০০৯ সালে পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশের শিয়া অধ্যুষিত কাতিফ এবং আল-ইহসা অঞ্চলকে সৌদি আরব থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে শিয়া অধ্যুষিত বাহরাইনের সাথে যুক্ত হওয়ার আহ্বান জানান শেখ নিমর। বিশেষজ্ঞদের মতে, নিমরের এই আহ্বানকে সৌদি সরকার হুমকি হিসেবে মনে করছে। কারণ সৌদি তেল ক্ষেত্রগুলোর একটা বড় অংশই শিয়া-প্রধান পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত। আর তাই এ অঞ্চল সব সময়ই সৌদি রাজতন্ত্রের দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে রয়েছে।

২০১১ সালে সৌদি আরবের পূর্বাঞ্চলে যে সরকার বিরোধী গণবিক্ষোভ শুরু হয়, শেখ নিমর তাতে জোরালো সমর্থন জানিয়েছিলেন। সৌদি আরবের ঐ অঞ্চলের শিয়ারা বহুদিন ধরে সরকারের বিরুদ্ধে বৈষম্য এবং বঞ্চনার অভিযোগ করে আসছে। দু’বছর আগে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় শেখ নিমরকে যখন গ্রেফতার করা হয়, তার প্রতিবাদে কয়েকদিন ধরে বিক্ষোভ হয়েছিল।

তার বিরুদ্ধে সৌদি শাসকদের অমান্য করা এবং নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে অস্ত্র হাতে নেয়ার অভিযোগ আনা হয়। গত অক্টোবরে এক বিচারে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। নিমরের ভাই দেশটির সর্বোচ্চ আদালতে আপিল করলেও আদালত তা খারিজ করে। সৌদি আরবের প্রধান আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বী ইরান এর আগে হুঁশিয়ারি দিয়েছিল যে, শেখ নিমরের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হলে সৌদি আরবকে তার চড়া মূল্য দিতে হবে।

নিমর ছাড়া বাকিদের অধিকাংশই ২০০৩ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত সৌদি আরবে আল কায়েদার চালানো ধারাবাহিক হামলার সঙ্গে জড়িত ছিলেন জানানো হয়েছে। এর মধ্যে আল কায়েদার গুরুত্বপূর্ণ নেতা ফারিস আল-জাহরানির নামও রয়েছে। মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়াদের মধ্যে একজন মিশরীয় এবং একজন কানাডার নাগরিকও রয়েছেন।

উল্লেখ্য, সৌদি আরব ২০১৫ সালে সর্বমোট ১৫৭ জনের মৃত্যুদ- কার্যকর করে। গত দুই দশকের মধ্যে এটিই দেশটিতে এক বছরে সর্বোচ্চ মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনা। এর আগে ১৯৯৫ সালে ১৯২ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছিল। গত নভেম্বরে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল জানিয়েছিল, ২০১৫ সালে মোট মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্তদের ৪০ শতাংশ, অর্থাৎ অন্তত ৬৩ জনকে মাদক সংক্রান্ত মামলায় মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়। যাদের মধ্যে ৪৫ জনই বিদেশি নাগরিক।

বিষয়বস্তু:
Share.

Leave A Reply