কেউ ছিটকে পড়েছেন রাজনীতি থেকে, কেউ ঘুরছেন দুদকের বারান্দায়!

12 minister

নিউজ ডেস্ক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম।।

আওয়ামী লীগ টানা দ্বিতীয়বার সরকার গঠন করলেও সব মন্ত্রীর স্থান হয়নি নতুন মন্ত্রিসভায়। বাদ পড়েছিলেন প্রায় এক ডজন মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী। বাদ পড়া সেসব দাপুটে নেতার বেশ কয়েকজন এখন রাজনীতি থেকেই ছিটকে পড়েছেন। কাউকে কাউকে দুর্নীতির অভিযোগ মোকাবিলায় ঘুরতে হচ্ছে দুদকের বারান্দায়। কয়েকজন মাঝেমধ্যেই শারীরিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়ছেন। রাজনীতি থেকে বিদায়ে বাধ্য হওয়া একাধিক মন্ত্রী এখন ব্যবসা নিয়ে ব্যস্ত। তবে ক্ষমতা হারিয়ে দলীয় কর্মকাণ্ডে মনোনিবেশ করেছেন এমন নেতাও আছেন এ তালিকায়।

জানা যায়, টানা দুই মেয়াদে মন্ত্রিত্ব পাওয়ার পরও পবিত্র হজ নিয়ে কটূক্তি করায় ছিটকে যাওয়া মন্ত্রী আবদুল লতিফ সিদ্দিকী এখন রাজনীতির বাইরে। রাজধানীর গুলশান-১-এর বাসায় বেশির ভাগ সময় অবস্থান করেন তিনি। সময় কাটে বই ও পত্রিকা পড়ে। খুব একটা বের হন না। কয়েক মাস কারাভোগ করা এই নেতা শুধু মন্ত্রিত্ব ও সংসদ সদস্যপদই হারাননি, এখন তার দলের প্রাথমিক সদস্যপদও নেই। এখনো তার নামে ১৮ জেলায় চলছে ২২ মামলা। এখন লতিফ সিদ্দিকীর বাসায়ও রাজনৈতিক নেতাদের যাতায়াত নেই বললেই চলে।

মুক্তিযুদ্ধের উপ-অধিনায়ক ও মহাজোট সরকারের সাবেক পরিকল্পনামন্ত্রী এ কে খন্দকার তার স্মৃতিচারণমূলক বইতে ৭ মার্চ প্রদত্ত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণের বিষয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে বিতর্কিত হয়েছেন। তার মন্ত্রিত্বের শেষের দিকে তিনি শারীরিকভাবেও অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। তিনি ৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে আগ্রহী ছিলেন না আর দলও তার বিষয়ে আর আগ্রহ দেখায়নি। জানা যায়, বর্তমানে তিনি শারীরিকভাবে সুস্থ। পরিচিতদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন। রাজধানীর উত্তরার বাসায় স্ত্রী ফরিদা খন্দকারকে নিয়ে দিন কাটাচ্ছেন। এখন বিভিন্ন অনুষ্ঠানেও যাচ্ছেন তিনি।

রেলের অর্থ কেলেঙ্কারির ঘটনায় সমালোচিত সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত মন্ত্রিত্ব হারানো আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতাদের মধ্যে ভালো অবস্থানে আছেন। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর এই সদস্য দলীয় কর্মকাণ্ডে পুরোপুরি সম্পৃক্ত। পাশাপাশি আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক সংসদীয় কমিটির সভাপতি। বিভিন্ন সভা-সেমিনার থেকে শুরু করে রাজনৈতিক নানা কর্মসূচিতে সুরঞ্জিত সেন তার গঠনমূলক বক্তব্য দিয়ে দলের নেতা-কর্মীদের চাঙ্গা রাখছেন।

মহাজোট সরকারের সাবেক শিল্পমন্ত্রী ও বাংলাদেশ সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া এখন নিজ দলের সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড নিয়ে ব্যস্ত আছেন। তাকে দলের বিভিন্ন অনুষ্ঠান ও কর্মসূচিতে নিয়মিত অংশ নিতে দেখা যায়। এর বাইরে তিনি বর্তমানে বই পড়ে সময় কাটাতে ভালোবাসেন বলে বাংলাদেশ প্রতিদিনকে জানান। দিলীপ বড়ুয়া বলেন, ‘এখন আমি দলের কাজে ব্যস্ত আছি। এ ছাড়া অবসরে মার্কস, মাও সে তুংয়ের বই, সমসাময়িক ম্যাগাজিন ও আর্টিক্যাল পড়ে সময় কাটাচ্ছি।’ তিনি রাজধানীর মালিবাগের ভাড়া বাসায় সস্ত্রীক বাস করছেন।

আওয়ামী লীগ সরকারের আগের মেয়াদের বহুল আলোচিত যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন। নিজ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান সাঁকো ইন্টারন্যাশনালে এখন সময় দিচ্ছেন। নিজ এলাকার বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচিতেও সময় দেন। পদ্মা সেতু কেলেঙ্কারির অভিযোগ ওঠার পর মন্ত্রিসভা থেকে সরে দাঁড়াতে বাধ্য হন তিনি। গত নির্বাচনে দল তাকে প্রার্থী করেনি। দলের কোনো পদেও তাকে দায়িত্ব দেওয়া হয়নি। ‘আমি ও জবাবদিহিতা’ শীর্ষক বইতে তিনি পদ্মা সেতুসংক্রান্ত কথিত দুর্নীতিতে তার জড়িত থাকার অভিযোগের অসারতা বর্ণনা করেছেন। এ ছাড়া নিজ এলাকা মাদারীপুরের একাংশ ও কালকিনি উপজেলায় বিভিন্ন উন্নয়নকাজ করছেন। জানা যায়, প্রকাশ্যে রাজনীতিতে জড়িত না থাকলেও তার অনুসারীদের পরোক্ষ নেতৃত্ব দিচ্ছেন। কালকিনি সৈয়দ আবুল হোসেন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ও শেখ হাসিনা একাডেমি অ্যান্ড উইমেন্স বিশ্ববিদ্যালয় কলেজসহ বেশ কিছু শিক্ষায়তনের প্রতিষ্ঠাতা আবুল হোসেন।

সাবেক স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী আ হ ম রুহুল হক তার মেয়াদ শেষে নিজের ও পরিবারের দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত হন। তবে ‘হলফনামায় তথ্য দিতে ভুল হয়েছে’ এ যুক্তি মেনে নিয়ে দুদক তাকে দায়মুক্তি দেয়। গত বছর অক্টোবরে আইলাবিধ্বস্ত আশাশুনির খোলপেটুয়া নদীর ভাঙনকূলে ছাত্রদল নেতাদের নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনায় পড়েন তিনি। বর্তমানে রাজধানীর শ্যামলীর ট্রমা সেন্টার অ্যান্ড অর্থোপেডিক হাসপাতালের চেয়ারম্যান। এ ছাড়া নিজ এলাকায় নিয়মিত বিভিন্ন কর্মসূচিতে যাচ্ছেন তিনি। রাজধানীতে বিভিন্ন স্বাস্থ্যবিষয়ক সেমিনারেও তাকে দেখা যায়। নিজ এলাকায় রাজনৈতিক নেতাদের কাছে রয়েছে ইমেজ সংকট। জেলা আওয়ামী লীগকে পাশ কাটিয়ে বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের অভিযোগও আছে স্থানীয় পর্যায়ে। তার দুর্নীতি বিষয়ে কোনো সংবাদ প্রকাশ পেলেই মামলা করেন তিনি। অভিযোগ আছে, হামলাও করেন।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন প্রায়ই অসুস্থ হয়ে পড়েন। ঢাকার এমপি সাহারা খাতুন উত্তরার বাসভবনেই থাকছেন। মাঝেমধ্যে সময় দিচ্ছেন সুপ্রিমকোর্টে তার পুরনো আইন পেশায়। নতুন মন্ত্রিসভায় ঠাঁই না পেলেও নিজের নির্বাচনী এলাকার বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশ নিচ্ছেন। সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক বিষয়ে।

ডা. দীপু মনি ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকতে রেকর্ডসংখ্যকবার বিদেশ ভ্রমণ করে তিনি সমালোচিত হয়েছিলেন। সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদে তাকে আর দায়িত্ব দেওয়া হয়নি। তিনি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন। বর্তমানে আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক দীপু মনি রাজনীতিতে পুরোপুরি সক্রিয়। দলের বিভিন্ন অনুষ্ঠান ও তার নির্বাচনী এলাকায় নিয়মিত দেখা যায়। তাকে দলীয় কার্যালয়েও দেখা যায়। তিনি এখন থাকছেন রাজধানীর ধানমন্ডির বাসায়।

সাবেক মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী আবদুল লতিফ বিশ্বাস বর্তমানে সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ প্রশাসক। দলের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন তিনি। ছোটখাটো অসুস্থতা ছাড়া বড় ধরনের কোনো শারীরিক অসুস্থতা তার নেই। এ মেয়াদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেলেও আগামীতে এমপি পদে তিনি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে ইচ্ছুক।

দুর্নীতির অভিযোগে অভিযুক্ত সাবেক গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী আবদুল মান্নান খান নির্বাচনে হেরেছেন। হারিয়েছেন দলের সাংগঠনিক দায়িত্ব। জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের করা মামলায় মান্নান খান ও তার স্ত্রী সৈয়দা হাসিনা সুলতানার বিরুদ্ধে পৃথক তিনটি অভিযোগপত্রের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। তাকে ঘুরতে হচ্ছে দুদকের বারান্দায়। তার বিরুদ্ধে চার্জশিটও দেওয়া হয়েছে। সূত্র: বাংলাদেশ প্রতিদিন।

বিষয়বস্তু:
Share.

Leave A Reply