থাকুন প্রকৃতির কাছাকাছি

লাইফস্টাইল ডেস্ক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম:

ব্যস্ত নাগরিক জীবনে প্রকৃতি থেকে আমরা ক্রমেই বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছি। আর এর প্রভাব পড়ছে আমাদের জীবনযাত্রায়। একদিকে মানুষের জীবন যেমন গ্রাস করছে যান্ত্রিকতা, অন্যদিকে বাস্তব পৃথিবীর সঙ্গে সম্পর্কও নষ্ট হচ্ছে। আসুন যান্ত্রিকতার প্রভাব কাটিয়ে চেষ্টা করি প্রকৃতির কাছাকাছি থাকার।

হাঁটুন ভোরের স্নিগ্ধ বাতাসে:

শরীর ও মনকে একটু বিশ্রাম দিন। সজীব নি:শ্বাস নিন। শরীর ঠিক রাখতে প্রকৃতির সঙ্গে যোগসূত্র স্থাপন করুন। ভোরের স্নিগ্ধ বাতাসে কিছুক্ষণ হাঁটুন। এটা আপনার শরীর, মন দুটোকেই সতেজ রাখবে। তাই সবুজের ছোয়া লাগান শরীরে। খুব সকালে ঘুম থেকে উঠুন। খালি পায়ে একটু নরম সবুজ ঘাসের ওপর দিয়ে হাঁটুন। দেখবেন টানা কয়েকদিনের অস্বস্তি আর ক্লান্তি কাটতে বসেছে। সপ্তাহের সাত দিন না হলেও অন্তত পাঁচ দিন ৩৫ থেকে ৪০ মিনিট করে হাঁটা উচিত।

সকালে প্রতিদিন কিছুক্ষণ করে হাঁটলে ফুসফুসে তাজা বাতাস প্রবেশ করার সুযোগ পায়। এ বাতাস থেকে অক্সিজেন সংগ্রহ করে হৃৎপিন্ড রক্তকে বিশুদ্ধ করে এবং অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্ত মস্তিষ্কে সরবরাহ করে। ফলে মস্তিষ্ক সচল থাকে এবং স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধি পায়।

বাগান করা:

পরিবেশের সঙ্গে আপনার সম্পর্ক বাড়ানোর অন্যতম উপায় হতে পারে বাগান করা। বিশেষ করে গাছের সঙ্গে আপনার সম্পর্ক বাড়ানোর একটি ভালো উপায় এটি। এতে পরিবেশের প্রতি আপনার দায়িত্ববোধও প্রকাশিত হবে। আপনার নিজের হাতে জন্মানো গাছে ফুল কিংবা ফল ফলিয়ে প্রকৃতির দান গ্রহণ ও সৌন্দর্য উপভোগে আপনি পাবেন অনাবিল আনন্দ।

ক্যাম্পিং:

বাড়ি থেকে বাইরে বের হয়ে কয়েক দিন থাকা ও খাওয়া হতে পারে আপনার বিরূপ পরিবেশের সঙ্গে মানিয়ে চলার ভালো একটি প্রশিক্ষণ। ক্যাম্পিংয়ের মাধ্যমে শিখে নেওয়া যায় কিভাবে বন্য পরিবেশে চলতে হয়। আধুনিক জীবনযাপনের উপকরণ ফোন, কম্পিউটার, রেডিও, টিভি ইত্যাদি দৈনন্দিন জীবনের হাত থেকেও নিস্তার পাওয়া যায় এতে। ফলে জীবনের জটিলতাগুলো থেকে অন্তত কিছু সময়ের জন্য হলেও নিস্তার পাওয়া যায়। আর প্রকৃতির সান্নিধ্য লাভের জন্যও ক্যাম্পিং সহায়তা করে।

নৌ ভ্রমণ:

পানির ওপর দিয়ে নৌকা চালানো হতে পারে প্রকৃতির কাছে যাওয়ার জন্য অন্যতম একটি উপায়। বড় একটি নৌ ভ্রমণ কিংবা ডিঙি নৌকায় করে ছোট একটি স্থান পাড়ি দেওয়া, যা-ই করেন না কেন, এতে কতটা প্রকৃতির কাছাকাছি যেতে পারবেন, তা ভাবতেও পারবেন না। পানির ওপর দিয়ে চলার সময় ঢেউ, বাতাস ও কুলকুল শব্দ আপনাকে প্রকৃতির অনাবিল রূপ উপলব্ধি করতে সাহায্য করবে।

মডেল: শেখ দীনা

Share.

Leave A Reply