বাংলাদেশ ব্যাংকে সংবাদকর্মী প্রবেশে ‘নিষেধাজ্ঞা’

নিউজ ডেস্ক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম:

চার দিন ধরে বাংলাদেশ ব্যাংকের বিভিন্ন বিভাগে যোগাযোগ ও প্রবেশের ক্ষেত্রে অঘোষিত নিষেধাজ্ঞায় পড়েছেন সাংবাদিকরা। ২৩ মার্চ ২০১৬ বুধবার সকাল থেকে নিষেধাজ্ঞা আরো জোরদার করা হয়েছে।

এত দিন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ভবনের সব বিভাগে সংবাদকর্মীদের যাতায়াতের অবাধ সুযোগ ছিল। কিন্তু এখন থেকে সেখানে সংবাদকর্মীরা প্রবেশ করতে পারবেন না বলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক সূত্রে জানা গেছে।

ব্যাংকে সাংবাদিক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র শুভঙ্কর সাহা বলেন, ‘ব্যাংকে সাংবাদিক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আছে, এটা বলা যাবে না। যাঁদের নামে পাস ইস্যু করা হচ্ছে, তাঁদের প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে। তবে আগের মতো অবাধে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না।’

‘শিগগিরই বাংলাদেশ ব্যাংকে একটি মিডিয়া সেন্টার খোলা হবে। আমরা সেখানেই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলব। সাংবাদিকদের কিছু জানার থাকলে বা কোনো বক্তব্য প্রয়োজন হলে আগে থেকেই সংশ্লিষ্ট বিভাগ বা ব্যক্তিকে জানাতে হবে। ওই ব্যক্তির অনুমতি সাপেক্ষে সাংবাদিককে ব্যাংকে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে।’

‘এ ছাড়া বাংলাদেশ ব্যাংকের কার্যক্রম সম্পর্কে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে গণমাধ্যমকে জানানো হবে। সাংবাদিকদের সঙ্গে যাতে সম্পর্কের অবনতি না ঘটে, সে বিষয়েও নজর রাখা হবে।’

ব্যাংকিং খাতের এ নিয়ন্ত্রক সংস্থা থেকে সংবাদকর্মীদের প্রয়োজনীয় তথ্য সরবরাহের জন্য মিডিয়া সেন্টার প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র।

গত মাসে সুইফট মেসেজ পাঠিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে থাকা বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে ফিলিপাইন ও শ্রীলঙ্কায় ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার সরানো হয়।

রিজার্ভ চুরির পর ব্যর্থতার দায় নিয়ে গত ১৫ মার্চ মঙ্গলবার গভর্নর পদ থেকে সরে দাঁড়ান ড. আতিউর রহমান। অন্যদিকে একই দিনে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত জানান, এ ঘটনায় আবুল কাশেম ও নাজনীন সুলতানাকেও ডেপুটি গভর্নরের পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

এর পরিপ্রেক্ষিতে পরিবর্তিত পরিস্থিতি সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে সংবাদকর্মীদের উপস্থিতি বেড়ে যায়। এর মধ্যে হঠাৎ করেই ব্যাংকের বিভিন্ন বিভাগে প্রবেশে অঘোষিত নিষেধাজ্ঞার মুখোমুখি হন সাংবাদিকরা। কার্টিসি: এনটিভি।

Share.

Leave A Reply