৯ চৈত্র, ১৪২৩|২৩ জমাদিউস-সানি, ১৪৩৮|২৩ মার্চ, ২০১৭|বৃহস্পতিবার, সকাল ৬:১৭

১০০ টাকায় জার্নি টু ইনফিনিটি

মুহম্মদ পাঠান সোহাগ, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম:

শখের নেশায় মহাকাশ ভ্রমণ। ঘুরে আসুন রাজধানীর বিজয় স্মরণীতে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটার। মহাকাশ সম্পর্কে যারা জানতে আগ্রহী তাদের জন্য এটা বেশ কাজের। এটি ২০০২ সালে দর্শনার্থীদের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। বিশাল এই ভবনটিতে ৩টি ফ্লোর রয়েছে। প্রথম ও দ্বিতীয় তলায় থিয়েটার। এতে ২০০ জন দর্শক বসার ব্যবস্থা রয়েছে।

নভোথিয়েটারে দুইটি বিষয়ের উপর চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হয়। একটিতে ‘জার্নি টু ইনফিনিটি’ এবং অন্যটিতে ‘এই আমার বাংলাদেশ। প্রথম চলচ্চিত্রে মহাকাশ, সূর্য ও বিভিন্ন গ্রহের এবং দিতীয়টিতে বাংলাদেশের প্রকৃতি, উৎপত্তি ও গ্রামীণ জীবন সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। এটি পরিচালনা, চিত্রনাট্য তৈরি ধারাবিবরণী দিয়েছেন সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক।

এই থিয়েটারের অর্ধগোলাকৃতি বিশাল অ্যালুমিনিয়াম পর্দায় উন্নতমানের প্রজেক্টরের সাহায্যে তথ্যচিত্রভিত্তিক ফিল্মে পুরো দৃশ্যকে জীবন্ত মনে হয়। মনে হবে, আপনিও বিশাল মহাশূন্যে ভাসছেন।

এছাড়া আরও দেখতে পারবেন ক্যাপসুল রাইট সিম্যুলেটর। এর মধ্যে প্রবেশ করলে মিসর ভ্রমনের অনুভুতি পাওয়া যায়। এতে আসন সংখ্যা ৩০টি। টিকেটের মূল্য ২০ টাকা।

বঙ্গবন্ধু নভোথিয়েটারে আরো আছে প্রদর্শনযোগ্য বিচিত্র সায়েন্টিফিক বিষয়। আছে মহাকাশবিষয়ক চিত্র, সূর্য, পৃথিবী ও চাঁদের মডেল। রয়েছে গ্রহ, নক্ষত্র, ছায়াপথ সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়। টাচ স্ক্রিন কম্পিউটারে টাচ করলেই বিজ্ঞানভিত্তিক তথ্য পাওয়া যায়। ১০০ টাকায় টিকেট নিয়ে প্রবেশ করলে কয়েকটি রাইট বাদ দিয়ে বাকি সবই দেখা যাবে। অবস্থান করা যাবে বাহিরে আথবা ভিতরে। বাহিরে মনোরম পরিবেশ।

বুধবার ছুটির দিন। প্রতিদিন ৬ টি শো দেখানো হয়। শনি থেকে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টা, দুপুর ১২টা, ২টা, সাড়ে ৩টা, ৫ টা ও সাড়ে ৬ টায়।

শুক্রবার সকাল ১০টা, সাড়ে ১১ টা, ২.৩০টা, বিকেল ৪টা, সাড়ে ৫টা ও সন্ধ্যা ৭ টায়। শো শুরুর এক ঘন্টা আগে কাউন্টার থেকে টিকিট সংগ্রহ করতে হবে। এছাড়া অগ্রিম ই- টিকেটের ব্যবস্থাও রয়েছে।

Share.

Leave A Reply