ইজরাইলের সঙ্গে ভারতীয় সেনাবাহিনীর তুলনা মোদির

ইন্টারন্যাশনাল ডেস্ক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম:

পাকিস্তানে ভারতের ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’-এর প্রসঙ্গ তুলে ইজরাইলি সেনাবাহিনীর সঙ্গে ভারতীয় সেনাবাহিনীর সক্ষমতার তুলনা করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভারতীয় সেনাবাহিনীর প্রশংসা করতে গিয়ে তিনি মন্তব্য করেছেন, ইজরাইলি সেনাবাহিনীর মতো করে ভারতীয় সেনাবাহিনীও তাদের সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের ক্ষমতা দেখিয়ে দিয়েছে।

১৮ অক্টোবর ২০১৬ মঙ্গলবার ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রথমবারের মতো হিমাচল প্রদেশ সফরে গিয়ে এসব কথা বলেন ‘গুজরাটের কসাই’ খ্যাত নরেন্দ্র মোদি।

কাশ্মিরে ভারতের দমননীতি আর পাকিস্তান-সংশ্লিষ্ট জঙ্গি হানার পারস্পরিক দোষারোপ এবং এ নিয়ে আন্তর্জাতিক তৎপরতার এক পর্যায়ে ২৮ সেপ্টেম্বর (বুধবার) রাতে নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে ভারতের সেনারা সন্ত্রাসী ঘাঁটিগুলোতে সার্জিক্যাল স্ট্রাইক চালানোর দাবি করে। ঘটনাকে ভারতের দিক থেকে ‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক’ প্রমাণ করে তাদের সামরিক শক্তি জানান দেওয়ার চেষ্টা করা হলেও পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের দাবিটি একটি ভ্রম। মিথ্যে প্রভাব তৈরির জন্য ভারতীয়রা ইচ্ছে করে এমনটা করছে।

ভারতের কথিত ওই সার্জিক্যাল স্ট্রাইক হওয়া না হওয়ার প্রশ্নে দুই দেশের রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও শীর্ষ সংবাদমাধ্যমগুলোর অব্যাহত আত্মপ্রচারণার ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার হিমাচল প্রদেশে গিয়ে ওই প্রসঙ্গ তোলেন মোদি।

হিমাচলের মান্ডিতে এক সমাবেশে ভাষণ দেওয়ার সময় বিভিন্ন ইস্যুর পাশাপাশি সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের প্রসঙ্গটিও উঠে আসে।

মোদি বলেন, ‘যে ভারতীয় সেনাবাহিনীর কথা সবাই বলাবলি করছে’ সেটি এখন দাম্ভিক ইজরাইলি বাহিনীর মতোই দক্ষ। প্রত্যেকে আমাদের সেনাবাহিনীর কথা বলছে। একই ধরনের দক্ষতা এতোদিন ইজরাইলি বাহিনীর ছিল বলে আমরা শুনে আসছিলাম। কিন্তু এখন সবাই জানে ভারতীয় বাহিনীরও কোনও কমতি নেই।’

অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্যদের জন্য চালু করা ওয়ান র‍্যাংক ওয়ান পেনশন স্কিম প্রসেঙ্গ বলতে গিয়ে তার সরকারের প্রশংসা করেন মোদি। তিনি বলেন, ‘৪০ বছর ধরে ওয়ান র‍্যাংক ওয়ান পেনশন স্কিমের উদ্যোগটি ঝুলিয়ে রাখা হয়েছিল। আমাদের সরকারই সে প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে। এরমধ্য দিয়ে কেবল সেনা সদস্যরাই নয়, তাদের পরিবারও এখন আমাদের আশির্বাদ করে।আমরা এ খাতে সাড়ে ৫ হাজার রুপি বরাদ্দ দিয়েছি এবং শিগগিরই বাকি টাকা পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দিয়েছি।’

২০১৭ সালে হিমাচলে বিধানসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই নির্বাচনকে সামনে রেখে এবার হিমাচল প্রদেশ সফরে গেলেন নরেন্দ্র মোদি। প্রধানমন্ত্রী পৌছানোর আগে আগে হিমাচলের রেনুকা বাঁধ প্রকল্পের জন্য জমি অধিগ্রহণের কাজ ত্বরান্বিত করতে ৪৫০ কোটি রুপি অনুদান দিয়েছে কেন্দ্র। হিমাচলে তিনটি জলবিদ্যুৎ প্রকল্প কাজের উদ্বোধনও করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী। সূত্র: দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া।

Share.

Leave A Reply