৩০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫|৬ রবিউস-সানি, ১৪৪০|১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮|শুক্রবার, সন্ধ্যা ৬:০৫

বাংলাদেশে মুগ্ধ গোটা ক্রিকেট দুনিয়া

স্পোর্টস ডেস্ক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম:

কত সুন্দর মুহূর্তই তো দোল খাইয়ে যাচ্ছে গত কিছুদিন। মাঠে নামলেই যেন জয়, সবশেষ কয়েকটি সিরিজে এমন দৃশ্য দেখাটা রুটিন বানিয়ে ফেলেছে বাংলাদেশ। তবু কখনও এই অনুভূতি অনুভব করেনি টাইগাররা। ইতোপূর্বে যে জয়গুলো এসেছে, তার সবই ওয়ানডেতে। টেস্টে সেই ‘কলি যুগে’ই পড়ে ছিল বাংলাদেশ। সেই তারাই ৩০ অক্টোবর ২০১৬ রবিবার ইতিহাস লিখেছে ইংল্যান্ডকে হারিয়ে। তাও আবার মাত্র তিন দিনে টেস্ট জিতে ক্রিকেট দুনিয়ায় নিজেদের অবস্থানের জানান দিয়েছে টাইগাররা।

ক্রিকেট দুনিয়াও অভিনন্দের জোয়ারে ভাসিয়েছে মুশফিকুর রহিমদের সাফল্যকে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার ভরে উঠেছে সাবেক ক্রিকেটারদের শুভেচ্ছা বার্তায়।

বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ হিসেবে কুমার সাঙ্গাকারা নেমেছেন অনেকবার। এখন অবশ্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় দিয়ে টুকটাক খেলছেন ঘরোয়া লিগগুলোতে। বাংলাদেশের পারফরম্যান্স মন ছুঁয়ে গেছে তাকেও। ইংল্যান্ডে হারানোর পর পরই তার টুইট, ‘বাংলাদেশ দলের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স। চমৎকার জয়। অভিনন্দন সবাইকে। ইংল্যান্ডকে খুব একটা স্বস্তিকর দেখালো না এই কন্ডিশনে।’ সাবেক আরেক গ্রেট টেস্ট ব্যাটসম্যান ভিভিএস লক্ষণও বাদ যাননি শুভেচ্ছা জানানোর তালিকা থেকে। ভারতের সাবেক এই ব্যাটসম্যান লিখেছেন, ‘অভিনন্দন বাংলাদেশকে। কী চমৎকারই না সময় ক্রিকেটের জন্য। চরম আবেগী দেশ, সাবাশ!’

শুধু সাবেকরা নয়, এখন ক্রিকেটে আলো ছড়ানো রবিচন্দ্রন অশ্বিনও অভিনন্দন জানিয়েছেন বাংলাদেশকে। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজটা অবশ্য শুরু থেকে ‘ফলো’ করছিলেন এই স্পিনার। দ্বিতীয় টেস্ট শেষে তিনি টুইট করেছেন এই লিখে, ‘অসাধারণ জয়ের জন্য অভিনন্দন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে। প্রিয় ভেন্যুতে স্মরণীয় টেস্ট জয় তোমাদের।’

বাংলাদেশের বিপক্ষেই অনন্য এক রেকর্ড গড়েছিলেন জেসন গিলেস্পি। নাইট ওয়াচম্যাচ হিসেবে নেমে টেস্টে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন এই অস্ট্রেলিয়ান টেস্টে। সাবেক এই পেসারও বাংলাদেশর পারফরম্যান্সে মুগ্ধ, ‘চমৎকার ফল বাংলাদেশের জন্য। সাবাশ! কী অসাধারণ দুটো টেস্ট ম্যাচ!’ ইংল্যান্ডের সাবেক ক্রিকেটা হয়ে কী আর এই ফল ভালো লাগবে মার্ক রামপ্রকাশের! তবু তিনি মুগ্ধ দুর্দান্ত সিরিজে, ‘হারটা সব সময়ই কষ্টদায়ক, এর পরও অভিনন্দন। আর দারুণ খেলেছে বাংলাদেশ। আরও একটি উত্তেজনাপূর্ণ টেস্ট ম্যাচ। এখানে সফর করতে পেরে আনন্দিত।’

টুইটার নিয়ে আলোচনা, আর মাইকেল ভন নেই, ভাবাই যায় না! সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের এই মাধ্যম নিয়ে যিনি ব্যস্ত থাকেন সব সময়, সেই তার কিনা বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড সিরিজের ম্যাচ নিয়ে কোনও টুইট নেই! আছে, তবে সেটা একেবারেই অন্যভাবে, ‘পুরো কৃতিত্ব যাবে ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়দের ওপর, যারা বাংলাদেশ সফরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। দুটো দুর্দান্ত সিরিজ উপহার দিলো।’ ইংল্যান্ডের ব্যর্থতার ঢাকতেই কি এমন টুইট!

Share.

Leave A Reply