চিকিৎসকদের জন্য আচরণবিধি চূড়ান্ত

নিউজ ডেস্ক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম:

চিকিৎসকদের জন্য একটি আচরণবিধি চূড়ান্ত করেছে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমডিসি)। শিগগিরই তা দেশের সব চিকিৎসকের কাছে পাঠানো হবে। ১৫ জানুয়ারি ২০১৭ রোববার বিএমডিসির কার্যনির্বাহী কমিটির ৭ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে এসে এ তথ্য জানান। বিএমডিসি সভাপতি ডা. মো. শহীদুল্লাহ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে তারা জানান, হাসপাতালে চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ থাকলে আদালতে যাওয়ার আগে বিএমডিসির কাছে যেন তা পেশ করা হয়, এই মর্মে সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর সম্প্রতি বিভিন্ন সংক্ষুদ্ধ ব্যক্তি বিএমডিসি বরাবর অভিযোগ পেশ করেছেন। বিএমডিসির শৃঙ্খলা কমিটি যথাযথ আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অভিযোগগুলোর নিষ্পত্তি করার ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। এই বিষয়ে জনসচেতনতা বাড়াতে প্রতিনিধি দল স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সহায়তা চাইলে মোহাম্মদ নাসিম ইতিবাচক সাড়া দেন।

সম্প্রতি ছাপানো প্রেসক্রিপশন বা হাতে লেখার ক্ষেত্রে বড় অক্ষর ব্যবহারের জন্য চিকিৎসকদের প্রতি উচ্চ আদালতের নির্দেশ বাস্তবায়নে বিএমডিসি ইতোমধ্যে পদক্ষেপ নিয়েছে জানিয়ে সভাপতি জানান, এ বিষয়ে দ্রুত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে।

তিনি জানান, চিকিৎসকরা তাদের প্রেসক্রিপশন প্যাড বা ভিজিটিং কার্ডে বিএমডিসির নিবন্ধনকৃত ডিগ্রি ছাড়া অন্য কোনো ডিগ্রি যেন ব্যবহার করতে না পারে সে বিষয়েও সুস্পষ্ট নির্দেশনা দিতে যাচ্ছে বিএমডিসি। এছাড়া বিভিন্ন দেশ থেকে এমবিবিএস ও বিডিএস কোর্স সম্পন্ন করে আসা শিক্ষার্থীদের জন্য বিএমডিসি কর্তৃক পুনরায় পরীক্ষ নেয়ার পদ্ধতিও শক্তিশালী করা এবং বছরে দুইবার এই পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে বলে জানায় প্রতিনিধি দল।

এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মহাখালীতে ঘোষিত স্বাস্থ্যপল্লীতে বিএমডিসির নতুন ভবন নির্মাণের জন্য জমি বরাদ্দ দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতীয় স্বাস্থ্য কাউন্সিলকে আরও শক্তিশালী করার উদ্যোগ নেয়া হবে বলে জানান মন্ত্রী।

এমবিবিএস ও বিডিএস ডিগ্রিধারী ব্যতীত কেউ যেন ডাক্তার পদবি ব্যবহার না করে সে বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে বলে বিএমডিসি প্রতিনিধি দল মন্ত্রীকে অবহিত করলে মন্ত্রী বলেন, ভুয়া ডাক্তার চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে সরকারের অভিযানকে এই প্রজ্ঞাপন বেগবান করবে।

Share.

Leave A Reply