গান নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটছে টিটো’র

সজীব শাহরিয়ার, সিনিয়র রিপোর্টার, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম: এ সময়ের জনপ্রিয় সুরকার ও সংগীত পরিচালক রফিকুল আজিজ টিটো। অডিও ও সিনেমা দুই মাধ্যমেই ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। রফিকুল আজিজ টিটো দ্য ঢাকা রিপোর্টকে বলেন, আসছে ঈদকে কেন্দ্র করে ‘ভালবাসার ঘুড়ি’ শিরোনামে একটি মিশ্র অ্যালবাম করছি। এখানে গান করছেন মুহিন,চম্পা বনিক, শিমু দে, বেলী ও নদী। সব কয়টি গানের সুর সংগীত পরিচালনা করছি আমি নিজে। আশা করছি অ্যালবামের প্রতিটি গান সবার ভালো লাগবে।

এ মুহূর্তে জনপ্রিয় শিল্পীদের বেশকিছু সলো ও মিক্সড অ্যালবাম নিয়ে কাজ করছেন রফিকুল আজিজ টিটো। এ পর্যন্ত তিনি প্রায় ১৫০টি অ্যালবামে সুরকার ও সংগীত পরিচালক হিসাবে কাজ করেছেন। সম্প্রতি ‘লাভ অ্যান্ড লাইফ এবং দ্য বার্নিং কোসেন সিনেমার কাজ শেষ করেছেন। পাশাপাশি কয়েকটি সিনেমার গানে হাত দিয়েছেন। কাজ করছেন নাটকের আবহ সংগীত ও টাইটেল সং নিয়েও।

সফল এ সংগীত পরিচালক দ্য ঢাকা রিপোর্টকে বলেন, আমার গানের শুরুটা খুব ছোটবেলা থেকেই। বাবা আব্দুল আজিজ বাচ্চু একজন সফল সুরকার ও সংগীত পরিচালক ছিলেন। আমার গানের হাতে খড়ি বাবার কাছেই। মা আনোয়ার বেগমও মনেপ্রাণে চেয়েছেন ছেলে সংগীতের সঙ্গে থাকুক। আজকে সংগীতের এ অবস্থানের জন্য মা বাবার অবদান সবটুকু বলে জানালেন টিটো।

রফিকুল আজিজ টিটো

রফিকুল আজিজ টিটো

ছোটবেলা থেকেই গিটারের প্রতি অন্যরকম ভালো লাগা কাজ করতো টিটো’র। তাই স্কুল পালিয়ে গিটার শেখা শুরু করেন। ১৯৯০ সালে ‘পানকৌড়ি’ নামে একটি ব্যান্ড তৈরি করেন। এখানে তিনি ভোকাল ও  কির্বোড বাজানোর কাজ করতেন। এরপর কির্বোডিস্ট হিসেবে বাংলাদেশের জনপ্রিয় অনেক ব্যান্ড ও সংগীত শিল্পীর সঙ্গে কাজ করেছেন।

একজন সফল সংগীত পরিচালক হবার স্বপ্ন দেখেন রফিকুল আজিজ টিটো। তার সংগীত পরিচালনায় অডিও ও সিনেমায় বাংলাদেশের অধিকাংশ গুণী শিল্পীই গান করেছেন।

২০০৪ সালে টিটো’র সংগীত পরিচালনায় এ্যান্ডু কিশোর ও সাজুর ডুয়েট অ্যালবাম ‘তুমিতো ভুলে গেছো’ বেশ জনপ্রিয়তা পায়। ইংরেজী গানের সুর করে ২০০৬ সালে বিবিসি অ্যাওর্য়াড পান। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ বেতারে সংগীত পরিচালক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

দেশবরেণ্য সংগীত পরিচালক আলাউদ্দিন আলী এবং আজাদ মিন্টুকে নিজের আদর্শ মনে করেন রফিকুল আজিজ টিটো।

ভবিষ্যতে নিজে গান গাইবেন কিনা? দ্য ঢাকা রিপোর্টের এমন প্রশ্নের উত্তরে জানান, তার প্রথম সলো অ্যালবামের কাজ চলছে। ভবিষ্যতে অডিও ও সিনেমা দুই মাধ্যমেই মনোনিবেশ করতে চান।

বাংলা গান নিয়ে নিজের স্বপ্নের কথাও জানিয়েছেন এই শিল্পী। তিনি বলেন, গুণী ওস্তাদদের নিয়ে গানের অ্যালবাম করতে চাই। সারা জীবন বাংলা গানের সঙ্গে থাকতে চাই। শ্রোতারা যে ধরনের গান পছন্দ করেন, সে ধরনের গান বেশি বেশি করতে চাই। আমি চাই বাংলা গান, বাংলাদেশের গান সারা দুনিয়ার মানুষের কাছে পৌঁছাক। স্বপ্ন দেখি আমার পরিচালনায় দেশে ও দেশের বাইরের জনপ্রিয় শিল্পীরা গান করে শ্রোতাদের মনে জায়গা করে নেবেন।

Share.

Leave A Reply