৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৪|২ রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯|২২ নভেম্বর, ২০১৭|বুধবার, রাত ১:৩৩

নতুন বিজ্ঞাপনে আসিন জাহান তন্বি

বিনোদন ডেস্ক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম: নতুন দুই বিজ্ঞাপনের মডেল হলেন জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী আসিন জাহান তন্বি। সম্প্রতি হাতিল ফার্নিচার এবং নিউজিল্যান্ডভিত্তিক কিউসিগ ইলেক্ট্রনিক সিগারেটের বিজ্ঞাপনে অংশ নিয়েছেন এই তারকা মডেল। শিগগিরই এগুলো বিভিন্ন চ্যানেলে দেখা যাবে। এর বাইরে বেশ কয়েকটি নতুন কাজ নিয়ে কথাবার্তা চলছে।

মিডিয়ায় তন্বি’র পথচলা শুরু ২০০৭ সালে। ওই সময়ে লাইফস্টাইল ও বিনোদনভিত্তিক দেশের খ্যাতনামা ম্যাগাজিনগুলোতে নিয়মিত দেখা মিলতো তার। এই বাইরে অংশ নিয়েছেন একাধিক টেলিভিশন চ্যানেলের ঈদ অনুষ্ঠানমালায়। এটিএন বাংলা এবং চ্যানেল আই-এর ফ্যাশন আয়োজনে মিউজিকের উত্তাল বিটে তার ছন্দময় ক্যাটওয়াক আকৃষ্ট করেছে দর্শকদের। মডেল হিসেবে কাজ করেছেন দেশি দশ, অঞ্জনস, অহন, মানসা’র মতো প্রতিষ্ঠানগুলোতে।

২০০৮ সালের বিনোদন বিচিত্রা ফটোসুন্দরী প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে সাড়া ফেলেন তন্বি। ওই আয়োজনে দ্বিতীয় রানার আপ হন তিনি।

২০০৯ সালে বেশকটি বিজ্ঞাপনে অংশ নিয়ে নতুন করে আলোচনায় আসেন এ তারকা মডেল। ওই বছর মোবাইল ফোন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ ফোনের দুটি বিজ্ঞাপনে অংশ নেন তিনি। এর একটি ছিল তার একক বিজ্ঞাপন। অন্যটি ছিল ঈদে বাড়ি ফেরার আকুলতা নিয়ে গ্রামীণ ফোনের বিখ্যাত বিজ্ঞাপন ‘স্বপ্ন যাবে বাড়ি’। এর শেষ অংশের ভয়েসটা ছিল এমন: ‘কাছে থাকার আকুলতার কাছে দূরত্ব বলে কিছু নেই।’ একই বছর তন্বি অভিনীত নিউট্রি সি শরবতের বিজ্ঞাপনটিও ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। ২০১৭ সালে ভ্যালেন্টাইন ডে উপলক্ষ্যে অল টাইমের বিজ্ঞাপনে অংশ নেন তন্বি। এটিও লুফে নেন দর্শকরা।

মডেলিং-এর বাইরে তন্বি অভিনীত ডজনখানেক নাটক টেলিভিশনে প্রচারিত হয়েছে। এরমধ্যে বাংলাভিশনে স্বপ্নচূড়া, এটিএন বাংলায় সমুদ্র জল, আরটিভি’তে মন কড়া, বিটিভিতে দিন বদলের পালা উল্লেখযোগ্য।

দিনাজপুরের মেয়ে আসিন জাহান তন্বি ২০১০ সালে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এসএসসি পাস করেন। ২০১২ সালে এইচএসসি পাসের পর ভর্তি হন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ (ইউল্যাব)-এ। এখানে তিনি ইংলিশে অনার্স করছেন।

ঘুরতে খুব পছন্দ করেন তন্বি। সুযোগ পেলেই তাই দেশ-বিদেশে ঘুরতে বেরিয়ে পড়েন। মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, নেপাল, থাইল্যান্ডের মতো দেশগুলোতে ঘুরে বেড়ালেও ঘোরাঘুরির জন্য পছন্দের স্থানগুলোর মধ্যে শীর্ষে আছে সমুদ্রকন্যা কক্সবাজার এবং পাহাড়ি সৌন্দর্যের স্বর্গরাজ্য রাঙ্গামটির সাজেক ভ্যালি।

আসিন জাহান তন্বি দ্য ঢাকা রিপোর্ট’কে জানান, তার প্রিয় ঋতু শীত ও বর্ষা। বৃষ্টিতে ভিজতে খুব পছন্দ করেন। সহাস্যে জানালেন, তার প্রিয় খাবার জাপানিজ ফুড। পছন্দের পোশাক ওয়েস্টার্ন ড্রেস ও শড়ি।

তন্বির বাবা বাবা সঙ্গীতজ্ঞ খালিদ হোসেন বকুল পেশায় ব্যবসায়ী। মা মাহমুদা রেখা গৃহিনী।

২০০৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর বিয়ে করেন ভালোবাসার মানুষ নাট্যকার, ব্যবসায়ী জাকির হোসেন অনিকেতকে। ২০১১ সালের ২০ জানুয়ারি ফুটফুটে এক কন্যা সন্তানের জননী হন তন্বি। মেয়ের নাম ওডেটা হোসেন; যার বাংলা অর্থ দাঁড়ায় সুসম্পদ। ওয়াইডব্লিউসিএ’তে ক্লাস ওয়ান পড়ুয়া ওডেটা’র ইচ্ছে বড় হয়ে সে মস্ত বড় এক ডাক্তার হবে।

বাসায় পড়ে থাকা ম্যাগাজিনের পাতা ওল্টালেই এখনও তন্বির ছবি চোখে পড়ে অনেকের। মেয়ে তাহলে বাদ যাবে কেন? এ বয়সেই শিশু শিল্পী হিসেবে নিয়মিত টিভি পর্দায় দেখা যাচ্ছে তাকে। প্রতি বুধবার বাংলাভিশনের ক্ষুদে রসিক রাজ অনুষ্ঠানে অংশ নেয় ওডেটা। শুক্রবার অনুষ্ঠানটি পুনঃপ্রচার করা হয়।

স্বামী সন্তান নিয়ে ভালো সময় কাটাচ্ছেন তন্বি। এভাবেই কাটিয়ে দিতে চান জীবনের চলার পথের বাকিটা সময়। জানালেন, মেয়েকে সময় দেওয়ার বাইরে সংসারের বাদবাকি ঝক্কি স্বামী অনিকেত-ই সামলায়। তার ভাষায়, ‘ও অনেক কেয়ারিং। সে শুধু আমার স্বামী নয় বরং চমৎকার একজন বন্ধু; যার সঙ্গে নির্ভাবনায় পথচলা যায়।’

Share.

Leave A Reply