৩০ অগ্রহায়ণ, ১৪২৪|২৪ রবিউল-আউয়াল, ১৪৩৯|১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭|বৃহস্পতিবার, রাত ১২:৩৯

খণ্ডকালীন চাকরির সুযোগ বাণিজ্য মেলায়

বিজনেস ডেস্ক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম: ১ জানুয়ারি পর্দা উঠছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার। মেলা উপলক্ষ্যে এক মাসের জন্য জনবল নিয়োগ দিচ্ছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। ফলে এখানে খণ্ডকালীন চাকরির সুযোগ পাচ্ছেন তরুণ-তরুণীরা। ক্যারিয়ার তৈরির আগে এমন অভিজ্ঞতা অর্জনকে তাই বড় পাওনা হিসেবে দেখছেন অনেকে। তাছাড়া টাকার অংকও নিছক কম নয়। মেলায় এক মাসে প্রতিষ্ঠানভেদে ১৫ থেকে ৩৫ হাজার টাকা পর্যন্ত আয়ের সুযোগ রয়েছে। এর পাশাপাশি সকালের নাশতা, দুপুরের খাবার, বিকেলের নাশতা, রাতের খাবার, ক্ষেত্রভেদে মোবাইল বিল এবং যাতায়াত খরচও পান বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিক্রয়কর্মীরা।

এশিয়ান ইউনিভার্সিটি’র সোশ্যালজি অ্যান্ড এনথ্রোপলজি বিভাগের শিক্ষার্থী ইশরাত জাহান তৃপ্তি। দ্য ঢাকা রিপোর্ট’কে জানালেন, খণ্ডকালীন চাকরি হিসেবে তার কাছে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা এক কথায় পছন্দের শীর্ষে। কারণ এক মাস ধরে কাজের সুবাদে নানা অভিজ্ঞতা তৈরি হয়। নিয়মিত কর্মজীবনে এই অভিজ্ঞতা কাজে দেবে।

মেলায় তুরস্ক, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ দেশি-বিদেশি অনেক প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। নিজেদের পণ্য বিক্রির পাশাপাশি তারা প্রতিষ্ঠানেরও প্রচারণা চালায়। মেলায় ক্রেতা-দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড় সামাল দিয়ে নিজেদের পণ্য বিক্রি ও সঠিকভাবে উপস্থাপনের অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানই তাদের নিয়মিত কর্মীর পাশাপাশি চুক্তিভিত্তিক খণ্ডকালীন কর্মী নিয়োগ দেয়।

২০১৭ সালে মেলায় ছয় শতাধিক প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছিল। এতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কয়েক হাজার তরুণ-তরুণী কাজের সুযোগ পান। সময় ঘনিয়ে আসায় মেলা উপলক্ষে প্রতিবারের মতো এবারও নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করেছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। মেলা চলাকালীন সময়ে খণ্ডকালীন কর্মী হিসেবে যোগ দিতে আপনিও খোঁজ নিয়ে দেখতে পারেন।

শিক্ষাগত ও অন্যান্য যোগ্যতা:

মেলায় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের হয়ে যারা খণ্ডকালীন ভিত্তিতে কাজ করেন, তাদের একটি বড় অংশই কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী।

হাতিল ফার্নিচারের হেড অব অপারেশনস মো. সামুয়েল মল্লিক। তিনি বলেন, ‘মেলায় খণ্ডকালীন কর্মী নিয়োগের ক্ষেত্রে আমরা শিক্ষার্থীদেরই বেশি অগ্রাধিকার দেই। বিশেষ করে সদ্য স্নাতক বা শিক্ষার্থীদের প্রাধান্য দিয়ে থাকি। এইচএসসি পাস করা প্রার্থীরাও নিয়োগের ক্ষেত্রে সমান সুযোগ পান।

শিক্ষাগত যোগ্যতাই অবশ্য বাণিজ্য মেলায় কাজ করার একমাত্র মানদণ্ড নয়। আগ্রহী প্রার্থীর যোগাযোগের দক্ষতা, উপস্থাপনার কৌশল, স্মার্টনেস, উপস্থিত বুদ্ধিমত্তা ও ব্যক্তিত্বের মতো বিষয়গুলো খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

খোঁজ পাবেন কোথায়:

ব্যক্তিগত যোগাযোগের মাধ্যমেই বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান নিয়োগ দিয়ে থাকে। তবে যেসব প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নেয়, তাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখলে কাজ পাওয়া সহজ হতে পারে। তাই মেলা শুরুর দুই-এক মাস আগে থেকেই সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখলে চাকরি পাওয়ার এক ধরনের সম্ভাবনা রয়েছে। মেলায় যেসব ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট প্রতিষ্ঠান কর্মী সরবরাহ করে, তাদের সঙ্গেও যোগাযোগ করা যেতে পারে।

বাণিজ্য মেলায় নিয়মিতভাবে অংশ নেয় প্লাস্টিক সামগ্রী নির্মাতা প্রতিষ্ঠান আরএফএল। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান মানবসম্পদ কর্মকর্তা মো. আফসার উদ্দিন। তিনি বলেন, ‘বাণিজ্য মেলায় নিয়োগের জন্য আমরা বিভিন্ন জব পোর্টাল এবং পত্রপত্রিকায় বিজ্ঞাপন দেই। আমাদের নিজস্ব ওয়েবসাইটের ক্যারিয়ার সেকশনের মাধ্যমেও নিয়োগ দেওয়া হয়। এর পাশাপাশি ব্যক্তিগতভাবে যারা যোগাযোগ করেন নিয়োগ প্র্রক্রিয়ায় তাদেরও অংশগ্রহণ থাকে।

ইগলু আইসক্রিমের এক্সিকিউটিভ, ব্র্যান্ড অ্যান্ড ইভেন্ট কাজী রাশিদুল মোবারক। তিনি বলেন, আমাদের কোম্পানির অফিশিয়াল ফেসবুক পেজের ইনবক্সে অনেকে সিভি পাঠান। সেখান থেকেও প্রতিবছর জনবল নিয়োগ দেওয়া হয়।

Share.