ব্যস্ততা বাড়ছে সঞ্চিতার

বিনোদন প্রতিবেদক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম: ব্যস্ততা বাড়ছে মডেল-অভিনেত্রী সঞ্চিতা দত্তের। বর্তমানে দীপ্ত টিভিতে সপ্তাহে ছয়দিন প্রচারিত হচ্ছে তার অভিনীত নাটক সন্দেহ ভাইরাস। কদিন আগেই এনটিভিতে প্রচারিত হলো সঞ্চিতা অভিনীত নাটক অসম। এর মধ্যেই কাজ করেছেন ভিশন ফ্যানের বিলবোর্ডে। হাতে আছে আরও বেশ কয়েকটি কাজ। বড় পর্দায় অভিষেকেরও হয়তো খুব একটা দেরি নেই। আর শিগগিরই দেখা যেতে পারে বিগ বাজেটের কোনো মিউজিক ভিডিওতে। একটি টেলিভিশন চ্যানেলের আসন্ন ঈদ অনুষ্ঠানমালায়ও দর্শকদের জন্য চমক নিয়ে হাজির হবেন সঞ্চিতা।

‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতা দিয়ে দর্শকদের নজর কাড়েন ৫ ফুট ৯ ইঞ্চি উচ্চতার এই লাস্যময়ী তরুণী। সম্প্রতি নিজের কাজ নিয়ে দ্য ঢাকা রিপোর্ট-এর সঙ্গে খোলামেলা কথা বলেন সঞ্চিতা।

গত ৯ মার্চ এনটিভিতে প্রচারিত হয় জয়ন্ত রোজারিও পরিচালিত নাটক অসম। এতে সঞ্চিতা ছাড়াও অভিনয় করেন বাপ্পা, সুজানা প্রমুখ।

দীপ্ত টিভিতে প্রচারের শুরু থেকেই জনপ্রিয়তা পেয়েছে সঞ্চিতা অভিনীত নাটক সন্দেহ ভাইরাস। আকাশ রঞ্জনের পরিচালনায় এ নাটকে সঞ্চিতার সহশিল্পী হিসেবে আছেন সুজাত শিমুল, আ খ ম হাসান, ফজলুর রহমান বাবু, চিত্রলেখা গুহের মতো বরেণ্য শিল্পীরা। শুক্রবার বাদে সপ্তাহের বাকি ছয়দিন সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা ও রাত ৯টায় প্রচারিত হচ্ছে নাটকটি।

সন্দেহ ভাইরাসের গল্পে সঞ্চিতাকে দেখা যাবে একজন সন্দেহ বাতিকগ্রস্ত পুরুষের স্ত্রীর ভূমিকায়। এই নাটকে সঞ্চিতার স্বামী বাসার সাবলেট নিয়ে তাকে সন্দেহ করে। সাবলেট দেওয়ার সময় স্বামী বলেছিল, সাবলেট নেওয়া ব্যক্তি দিনভর বাইরে থাকবেন। শুধু রাতে বাসায় ফিরে ঘুমাবেন তিনি।

পরে দেখা যায়, সাবলেট নেওয়া ওই ব্যক্তি আসলে বেকার। চাকরি না থাকায় সে সারাদিন বাড়িতে থাকে। এরপর থেকেই সঞ্চিতার সংসারে অশান্তি শুরু হয় তাকে নিয়ে। চলে অকারণ সন্দেহ আর ঝগড়াঝাটি।

নিজের বউয়ের সঙ্গে ওই ব্যক্তিকে কথা বলতে দেখলেই চটে যান সঞ্চিতার স্বামী সুজাত শিমুল। যদিও তার স্ত্রীর ওই কথোপকথনে সন্দেহ করার মতো কিছু নেই। এক পর্যায়ে সাবলেট নেওয়া ব্যক্তিকে বাসা ছাড়তে বলেন সঞ্চিতার স্বামী। এ ঘটনায় সঞ্চিতা তাকে সাফ জানিয়ে দেন, ভাড়াটিয়াকে বাসা ছেড়ে দিতে বলা মানে তার ব্যাপারে নিজের বউকে নিয়ে সন্দেহ করা। এ নিয়ে বাবার বাড়ি চলে যাওয়ারও হুমকি দেন তিনি। এমন দ্বন্দ-সংঘাত আর সন্দেহ বাতিক নিয়েই এগিয়ে চলে নাটকের গল্প।

Share.

Leave A Reply