কেমন হবে বৈশাখের সাজ

নিজস্ব প্রতিবেদক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম: বৈশাখের প্রথম দিন ভোরের আলো ফুটতেই সাজসজ্জা শুরু হয় তরুণীদের মধ্যে। আর বৈশাখ মানেই সাদা-লাল পাড়ের শাড়ি আর বাহারি ঢঙের সাজ। গরম, অনভ্যস্ততার কারণে শাড়িতে স্বস্তি বোধ করেন না অনেকে। তাঁরা অনায়াসে পরতে পারেন সালোয়ার-কামিজ বা কুর্তা-চুড়িদার। পোশাকের নকশা, কাটে ভিন্নতা আনা যেতেই পারে। সাজটা যাতে অনেক সময় থাকে সেজন্য মেকআপের আগে কিছু সময় মুখে বরফ ঘষে নিন। তবে মনে রাখতে হবে সাজটা হালকা হলে ভালো।

দিনভর ঘোরাঘুরি। ঠিকভাবে না সাজলে গরমে পুরো সাজ যাবে লেপটে। পয়লা বৈশাখের আগের রাতে মুখে, গলায়, হাতে, পায়ে একটা ভালো প্যাক লাগালে ত্বক পরিষ্কার হবে। এরপর ঘুম থেকে উঠে ভালোভাবে মুখ পরিষ্কার করে নিন। এবার টিস্যুতে বরফ নিয়ে আলতো করে মুখে ঘষে নিতে হবে, বিশেষ করে টি-জোনে।

শুষ্ক ত্বক হলে এবার টোনার ব্যবহার করতে হবে। আর তৈলাক্ত ত্বক হলে অ্যাসট্রিনজেন্ট লোশন ব্যবহারের পর কমপ্যাক্ট পাউডার ব্যবহার করুন। চাইলে হালকা পাউডারজাতীয় মিনারেল ফাউন্ডেশন ব্যবহার করা যেতে পারে। আইলাইনার, কাজল দিয়ে চোখকে টানা টানা করতে পারেন। আইলাইনার, কাজল, মাশকারা অবশ্যই পানিরোধক কিন্তু ম্যাট হতে হবে।

চোখের ওপরে-নিচে শুধু কাজল আর চোখের পাতায় গাঢ় করে মাশকারা দিলেও আর্কষণীয় হয়ে উঠবে চোখ জোড়া। এছাড়া গাঢ় বাদামি, হালকা তামা রঙের আইশ্যাডো ব্যবহার করতে পারেন। ঠোঁটে হালকা রঙের ম্যাট লিপস্টিক। একটু চাকচিক্য আনতে চাইলে হালকা লিপগ্লসও ব্যবহার করা যেতে পারে।

বৈশাখী সাজে মা-মেয়ে

এভারগ্রিন অ্যাডামস অ্যান্ড ইভ-এর বিউটি এক্সপার্ট নাহিদ আফরোজ তানি’র পরামর্শ, এখন যেহেতু গরমের দিন ফলে উৎসব উদযাপনেও বিষয়টি মাথায় রাখা জরুরি।

বৈশাখের সাজ সম্পর্কে এই রূপবিশেষজ্ঞ বলেন, মুখ আলতো করে মুছে নিয়ে ভালো মানের সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। এতে গ্রীষ্মের কড়া রোদেও আপনার ত্বক সুরক্ষিত থাকবে। চুলটা থাকবে অগোছালো, কিন্তু এর মাঝেও থাকতে হবে ছন্দ।

বৈশাখের সাজের পরিপূর্ণতার জন্য একহাত ভর্তি কাচের চুড়ি মানানসই। এছাড়া পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে সুতা, কাঠ ও বিভিন্ন পুঁতির গয়না পরলে ভালো দেখাবে। চুড়িদার কামিজের সঙ্গে রুপার গয়নাও বেশ চলে। আর সারা দিনের হাঁটার জন্য পায়ে আরামদায়ক স্যান্ডেল পরুন। এবার নির্ভাবনায় বেরিয়ে পড়ুন।

Share.

Leave A Reply