৮ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫|১২ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০|২২ নভেম্বর, ২০১৮|বৃহস্পতিবার, রাত ১২:৩৭

রোদ-বৃষ্টিতে ত্বকের পরিচর্যা

নিউজ ডেস্ক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম: এই রোদ তো এই বৃষ্টি। এমন এ রকম আবহাওয়ার মধ্যেই কাজের প্রয়োজনে সারা দিন ছোটাছুটি করতে হয়। ফলে ত্বক অনেকাংশেই নাজুক হয়ে পড়ে, নির্জীব দেখায়। তাই বাড়িতে ও বাইরে দরকার একটু বাড়তি যত্ন-আত্তির।

রূপবিশেষজ্ঞ নাহিদ আফরোজ তানি দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম’কে বলেন, বৃষ্টিতে ভিজে গেলে পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে তোয়ালে দিয়ে মুছে ফেলতে হবে। যতটা সম্ভব ত্বক পরিষ্কার রাখতে হবে। টোনিং করতে হবে নিয়মিত। তৈলাক্ত ত্বকের অধিকারীরা ফ্রিজে বা ঠান্ডা জায়গায় টোনার সংরক্ষণ করতে পারেন। এতে টোনার ব্যবহারের সময় ভালো ফল পাবেন। অন্য ত্বকধারীরা সাধারণ তাপমাত্রাতেই টোনার সংরক্ষণ করতে পারেন।

গরমের সময়ে শসা খুব ভালো কাজ করে ডিপ ক্লিনিংয়ের জন্য। ফ্রিজে রাখা ঠান্ডা শসা কুচি করে ত্বকের ওপর কিছুক্ষণ রেখে দিতে পারেন। এতে ত্বকে উজ্জ্বলতা বাড়বে।তৈলাক্ত ত্বকে এই ঋতুতে কিছুটা কালচে ভাব চলে আসতে পারে। মুলতানি মাটি আর গোলাপজল মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। উপকার পাবেন। ব্রণ বা দাগের জন্য শসা, গোলাপজল ও কাঁচা হলুদের পেস্ট লাগাতে পারেন। মিশ্র ত্বকের জন্য ডিমের সাদা অংশ, মধু, লেবুর রস, দুধের সর চমৎকার কাজ করবে। ত্বক পরিষ্কার করে এই পেস্ট লাগিয়ে রাখতে পারেন, উজ্জ্বলতা আসবে।

রোদ আর বৃষ্টির মাঝে পড়ে চুলের খুব ক্ষতি হয়। বৃষ্টির পানিতে চুল ভিজে গেলে বাড়ি ফিরে সম্ভব হলে শ্যাম্পু করে ফেলবেন। এতে চুল ঝরঝরে হয়ে যাবে। না হলে ময়লা আটকে থাকবে চুলের গোড়ায়। টক দই, পাকা পেঁপে ও কলা একসঙ্গে চটকে প্যাক বানিয়ে চুলে লাগিয়ে রাখুন ২০-২৫ মিনিট। এরপর ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন।

মেঘলা আবহাওয়া থাকলে সানস্ক্রিন লোশন বা ক্রিম ব্যবহার না করলেও চলবে। তবে কড়া রোদ থাকলে বিকেল চারটা পর্যন্ত সানস্ক্রিন লোশন ব্যবহার করতেই হবে। মেকআপটা যতটা সম্ভব হালকা রাখুন। তৈলাক্ত ত্বকের জন্য একটু তেলবিহীন মেকআপ দিতে হবে। চোখে খুব বেশি চকচকে ও চড়া রঙের আইশ্যাডো বা কাজল ব্যবহার না করলেই দেখতে ভালো লাগবে।

Share.

Leave A Reply