৫ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫|১০ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০|১৯ নভেম্বর, ২০১৮|সোমবার, বিকাল ৩:৫৫

অনুভব অনাশ্রয়ে

জান্নাতুন নুর দিশা:
তুমি তো কখনোই আমার ছিলে না
এই কুসুম কোমল হৃদয়ে যখন তুমি ফুটিয়েছিলে প্রথম প্রেমের পদ্ম
তখন কি তুমি আমার ছিলে?
না, ছিলে না।

যখন প্রণয় সর্বেসর্বা জেনে আমি কাটাচ্ছিলাম উন্মুক্ত যৌবন,
যখন নিদারুণ সুখে আমি কাটাচ্ছিলাম অপেক্ষার দীর্ঘ রজনী,
যখন মাস্তুলে বসে তুমি শোনাচ্ছিলে আমায় সুদীর্ঘ কবিতা,
দূরালাপনির সেই হাতের কড়িতে গোণা প্রতিটি অমূল্য প্রহরে,
তুমি তো আমার ছিলে না।

যখন তোমার এক ডাকে ভীতু আমি সাহসী হতাম সচকিতে,
যখন তোমার বুকপকেটে গুঁজে দিতাম গুচ্ছগুচ্ছ প্রেম,
দূরত্বের করুণ অনলে যখন দাহ হত আমার অতৃপ্ত হৃদয়,
আমি নির্বোধ সুখে ভাবতাম তুমি আমার!
অথচ,
অথচ তখনও তুমি আমার ছিলে না।

আমি যখন অচেনা পথে মেঘ-রোদ্দুরে স্বাপ্নিক চোখে ঘুরে বেড়াতাম প্রেমিকা সেজে,
পথিমধ্যে গোলাপি মেয়েটা গোলাপ নিয়ে এগিয়ে এলে কিনে নিতাম,
খোঁপায় যখন কদম গুঁজে বর্ষাবিধূর প্রহর গুণতাম।
সেই প্রহরে কে জানতো ভুল প্রেমিকে মজেছে মন,
কে জানতো,
কে জানতো,
সেই প্রহরে তুমি আমার ছিলে না।

যখন তোমার হাজার সুস্বরে মেতে থাকা প্রেমকাতর মত্ত আমি,
যখন তোমার আঁধার ভাঙা কান্না ছুঁয়ে বাঁচবো বলে স্বপ্ন দেখি,
যখন তোমার কঠিন স্বরে ভালোবাসার আশঁসা বুনি,
ছিলে না,
সেই কামনার উদ্বেলিত অভিলাষেও
তুমি আমার ছিলে না।

হে দুর্বৃত্ত প্রেমিক,
তোমার সেসব নিষ্করুণ ঘাতক প্রেমের শপথ করে বলছি শোনো
তুমি তো কখনোই আমার ছিলে না।
আমি কেবল তোমার ছিলাম, তোমার হয়েই বাঁচছি আজও।

Share.

Leave A Reply