‘সারিবা এ টু জেড কালেকশন’ নিয়ে পথ চলছেন শাহমিদা নেওয়াজ

ইমরান হক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম: মেয়েদের নানা ফ্যাশনেবল পোশাকের প্রতি দুর্বলতা রয়েছে আর অনলাইনে কেনাকাটা করেন, এমন অনেকের কাছেই পরিচিত নাম ‘সারিবা এ টু জেড কালেকশন’। বরাবরই গুণগত মানের প্রতি বাড়তি নজর দিয়ে থাকে এ ফ্যাশন ব্র্যান্ড। বিকিকিনির প্ল্যাটফর্ম বলতে ‘সারিবা এ টু জেড কালেকশন’ নামের ফেসবুক পেজ। এ পেজের মাধ্যমেই চলে মেয়েদের নিত্যনতুন নানা সামগ্রীর আনাগোনা, আর কেনাবেচা। এই ব্যস্ত অনলাইন শপিং আউটলেটের স্বত্বাধিকারী ফ্যাশন ডিজাইনিং-এর শিক্ষার্থী শাহমিদা নেওয়াজ।

দ্য ঢাকা রিপোর্ট-এর সঙ্গে একান্ত আলাপে শাহমিদা নেওয়াজ বলেন, ‘ছোটবেলা থেকেই ড্রেস ডিজাইনের প্রতি অনেক আগ্রহ ছিলো। শখের বশে পুতুলের জামা বানানো থেকে কবে এটা নেশা হয়ে গেছে বলতে পারবো না। কাছের মানুষের উৎসাহ থেকে সেই নেশাকে পেশা বানিয়ে ফেললাম। যেহেতু মায়ের একটা বুটিক হাউজ আছে তাই এ কাজের সঙ্গে আমি ছোটবেলা থেকেই পরিচিত। মায়ের উৎসাহে ১০ জন কর্মী নিয়ে একটা ছোট ফ্যাক্টরি চালু করি। আমার নিজের ডিজাইন করা ড্রেসগুলো সেখানেই তৈরি হয়।’

শুরুটা হয় ২০১৪ সালের অক্টোবরে। তখন কলেজের পড়াশুনার পাশাপাশি ফ্যাশন ডিজাইনিংয়েও নিয়মিত হতে শুরু করেন। মূলত নিজের একটা স্বতন্ত্র পরিচয়ের তাগিদেই কাজটি শুরু করেন।

শাহমিদা নেওয়াজের ভাষায়, ‘জানি না কতটা করতে পেরেছি, কিন্তু সামনে অগ্রসর হচ্ছি। কিছু গরিব মানুষকে শিখিয়ে কারখানায় কাজ দিয়েছি। এখানে কাজ করে তাদের সংসার চলে। চাকরি করলে কোনো দিনই হয়তো এটা সম্ভব ছিল না।’

নিজের অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে এই তরুণ উদ্যোক্তা বলেন, ‘শুরুটা অনেক কঠিন ছিল। তখন খুব কমই অনলাইন পেজ ছিল। মানুষ এতটা ভরসাও করতো না। সব প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে মানুষের ভরসার জায়গাটা অর্জন করতে পেরেছি।

শাহমিদা নেওয়াজ দ্য ঢাকা রিপোর্ট-কে বলেন, সামনে অনেক সপ্ন আছে। আমার বুটিক হাউস নিয়ে আরও অনেক কাজ করতে চাই। যেতে চাই বহুদূর।

অনলাইনে যারা নতুন তাদের উৎসাহ দিতে ফেসবুকে একটি গ্রুপ রয়েছে শাহমিদা নেওয়াজের। ব্যক্তিগতভাবে তিনি সব সময়ই নতুনদের যে কোনও উদ্যোগকে ইতিবাচকভাবে দেখেন। মানুষের কর্মস্পৃহা, সৃজনশীলতাকে স্বাগত জানান।

শাহমিদা নেওয়াজ বলেন, ‘আমার কাছে কাজের কোয়ান্টিটির চেয়ে কোয়ালিটি অনেক বেশি জরুরি। ১০টা গড়পড়তা কাজের চেয়ে তিন চারটি ভালো কাজ করাই শ্রেয়। এটা মাথায় রেখেই ডিজাইন করি। আর সব সময় চেষ্টা থাকে, কাপড়ের মান যেন ভালো হয়।

Share.

Leave A Reply