বৈশাখের সাজ-পোশাক

নিউজ ডেস্ক, দ্য ঢাকা রিপোর্ট ডটকম: দরজায় কড়া নাড়ছে পহেলা বৈশাখ। বাংলা বছরের প্রথম দিনটিকে বরণ করে নিতে প্রস্তুতির যেন শেষ নেই। মেয়েরা সাদা শাড়ি-লাল পাড়ে নিজেকে কতটা আকর্ষণীয় করে তোলা যায় সে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। পাঞ্জাবিতে নিজেদের ভিন্নভাবে ফুটিয়ে তুলতে ছেলেরাও পিছিয়ে নেই।

রূপবিশেষজ্ঞ নাহিদ আফরোজ তানি বলেন, বাংলা নতুন বছরের প্রথম দিনটি বাঙালির বড় এক উৎসব। নববর্ষে নিজেকে তুলে ধরতে পারেন নতুনভাবে। প্রতিবছরই সাজে কিছুটা নতুনত্ব বা বৈচিত্র্য আসে। তবে বিশেষভাবে এই দিনটিকে বরণ করতে সাদা-লাল রঙ-ই বেছে নিয়ে থাকে সবাই।

মেয়েদের জন্য শাড়ি চমৎকার পোশাক। তবে শাড়ি ছাড়াও এখন অনেকেই ফতুয়া বা কুর্তি বেছে নিচ্ছেন বৈশাখের পোশাক হিসেবে। তাছাড়া সালোয়ার-কামিজ তো আছেই।

মডেল: সাবরিনা সাবা। ছবি: তৌহিদ রিয়াজ, লুক মাল্টিমিডিয়া

সবার চাহিদার কথা মাথায় রেখে দেশীয় ফ্যাশন ঘরগুলোও সেই অনুযায়ী পোশাকের পসরা সাজিয়েছে তাদের বিক্রয়কেন্দ্রগুলোতে। শুধু নামিদামী ফ্যাশন হাউজগুলোই নয়, ছোটখাটো দোকানগুলোও বৈশাখকে কেন্দ্র করে তাদের আয়োজন সাজিয়েছে।

প্রতিবারই বসন্তের সাজের সঙ্গে মাটির গয়না বেশি পরে থাকেন তরুণীরা। এর সঙ্গে যুক্ত হয় কাপড়ের গয়না, সুতার গয়না, ঝুমকা ইত্যাদি। তাছাড়া লাল-সাদার পাশাপাশি সবুজ, কমলা, হলুদও বৈশাখে দ্যুতি ছড়ায়।

নতুন বাংলা বছরের প্রথম দিনে চাই মনের মতো সাজ আর মাথায় গোঁজা বেলিফুলের মালা। তীব্র গরম আর ঘামের কথা ভেবে অনেকেই চিন্তিত থাকেন এই দিনের সাজপোশাক নিয়ে। কারণ সাজার পর যদি ঘেমে গিয়ে মেকআপ নষ্ট হয়ে যায়, তাহলে উৎসবের আনন্দ পুরোটাই মাটি। তাই এ দিনের সাজ হওয়া চাই হালকা।

রূপবিশেষজ্ঞ নাহিদ আফরোজ তানি বলেন, নববর্ষকে স্বাগত জানাতে পান্তা ইলিশ, লাল-সাদা শাড়ি ও পাঞ্জাবিতে সবাই নিজেকে নতুন করে সাজিয়ে তোলে। শাড়ি আর পছন্দের পোশাকের সঙ্গে নিজেকে আরও সুন্দর করে তুলতে কিছুটা সাজগোজ তো চাই। তবে এ উৎসবের সাজ-পোশাকে যেন অবশ্যই বাঙালিয়ানার ছাপ থাকে, সেদিকে নজর দেওয়া প্রয়োজন।

Share.

Leave A Reply